খোলা রাস্তার পাশে বাথরুম করতে বসেছিল যু’বক, পেছন থেকে বেলুন ফাটানোর শব্দ শুনে ভয়ে কেঁপে উঠল যুবক ঘটলো বিপত্তি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

শিশুরা খেলনা হিসেবে যে বেলুন ব্যবহার করে থাকে, তা সাধারণত ল্যাটেক্সের তৈরি হয়। সাধারণত মুখ দিয়ে জোরে ফু দিয়ে ফুলিয়ে এজাতীয় বেলুন ব্যবহৃত হয়। তবে ভিতরে কার্বন ডাইঅক্সাইড ব্যবহৃত হয় বলে বেলুন,

বাতাসের তুলনায় ভারি হয়ে যায় এবং বাতাসে ভাসতে পারে না। রঙ-বেরঙের বেলুন দিয়ে জন্মদিনের উৎসবে ঘর সাজানোর রেওয়াজ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দেখা যায়।

সাধারণ বেলুনে হাইড্রোজেন গ্যাস ভরা হলে তা বাতাসে ভাসে। তখন বেলুনের মুখ সুতায় বেঁধে সে সুতা হাতে ধরে রাখতে হয়। হাইড্রোজেন গ্যাস বাতাসের চেয়ে হালকা বিধায় এরকম বেলুন বাতাসে ভাসে।

শান্তির প্রতীক কবুতর উড়িয়ে যেমন অনেক অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয় তেমনি একগুচ্ছ গ্যাস বেলুন অবমুক্ত করে অনুষ্ঠান উদ্বোধনের রেওয়াজ চালু হয়েছে।

গ্যাস বেলুন ছেড়ে দিলে ভাসতে ভাসতে তা ক্রমশ: আকশে উঠে যায়। তবে সুতায় মুখ বাঁধা হলেও গ্যাস ‘লিক’ হয়ে যেতে থাকে এবং একসময় বেলুন নিচে

নামতে শুরু করে।রাস্তার পাশে বাথরুম করতে বসেছিল যুবক, পেছন থেকে বেলুন ফাটানোর শব্দ শুনে ভয়ে কেঁপে উঠল যুবক ঘটলো বিপত্তি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।