জঙ্গলে গাছের এতদম মণি ডগায় বাসা বেধেছে মৌমাছি, দারুন কায়দা করে মধু আহরণ করল দুই যুবক, নেটদুনিয়ায় ব্যাপক ভাইরাল ভিডিও। দেখুন ভিডিও

মৌমাছি বা মধুমক্ষিকা বা মধুকর () বোলতা এবং পিঁপড়ের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কযুক্ত মধু সংগ্রহকারী পতঙ্গবিশেষ। মধু ও মোম উৎপাদন এবং ফুলের পরাগায়ণের জন্য প্রসিদ্ধ।

পৃথিবীতে ৯টি স্বীকৃত গোত্রের অধীনে প্রায় বিশ হাজার মৌমাছি প্রজাতি আছে, যদিও এর বেশিরভাগেরই কোন বর্ণনা নেই এবং এর প্রকৃত সংখ্যা আরো বেশি হতে পারে। আন্টার্কটিকা ব্যতীত পৃথিবীর সকল মহাদেশে যেখানেই পতঙ্গ-পরাগায়িত সপুষ্পক উদ্ভিদ আছে,

সেখানেই মৌমাছি আছে। ভারতে সচরাচর যে মৌমাছি দেখা যায় তার বৈজ্ঞানিক নাম (এপিস ইন্ডিকা) এই অঞ্চলে আরো তিন প্রজাতির মৌমাছি দেখা যায় যথা ইউরোপীয় মৌমাছি বা (এপিস মেলিফেরা), পাহাড়ি মৌ (এপিস ডরসাটা) ও ছোটো মৌমাছি বা (এপিস ফ্লোরিয়া)

পরিবারের বোলতারা হল মৌমাছির পূর্বপুরুষ, যারা ছিল অন্য পতঙ্গ শিকারী। পতঙ্গ শিকার থেকে পরাগে আসার কারণ সম্ভবত যে পতঙ্গগুলো শিকার করা হত সেগুলো ফুলে ফুলে ঘুরত এবং সেগুলো পুষ্পরেনু দ্বারা আংশিক আচ্ছাদিত থাকত।

সেগুলোই বোলতার লার্ভাকে খাওয়ানো হত। একই রকম বিবর্তন সংঘঠিত হয়েছিল বোলতার ক্ষেত্রে, যেখানে পরাগের বোলতারা এসেছিল তাদের শিকারী পূর্বপুরুষদের থেকে। ছাপ থেকে পাওয়া নয় এমন ফসিল, এখন পর্যন্ত পাওয়া গেছে নিউ জার্সির এম্বারে , এটি ক্রেটাসিয়াস যুগের ফসিল এবং ফসিলটি হল মৌমাছির।

আরও পড়ুনঃ বেশ কায়দা করে বাশ ‍দিয়ে বড় বড় সাপ ধরার অভিনব পদ্ধতি বের করলো ‍যুবক, নেট দুনিয়ায় ভাইরাল ভিডিও সাপ হাত-পা বিহীন দীর্ঘ শরীরের, মাংসাশী, ধূর্ত এক প্রকার সরীসৃপ।

এদের চোখের পাতা এবং বহিকর্ণ না থাকায়, সাপ পা-বিহীন টিকটিকি থেকে আলাদা। বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস অনুযায়ী, প্রাণী জগৎ জগতের, কর্ডাটা পর্বের, ভার্টিব্রাটা উপপর্বের,

Sauropsida শ্রেণীর, Squamata বর্গের, Serpentes উপবর্গের সদস্যদের সাপ বলে অভিহিত করা হয়। সাধারনত সাপকে সবাই ভয় পায় । কিন্তু কোন কোন মানুষ আছে যাদের সাপ একটি খাদ্যের মধ্যে অন্যতম।

তাই তারা সাপ ধরে খাবারের জন্য। কেউ আবার সাপ ধরে পালন করার জন্য। সাপ ধরার বিভিন্ন পদ্ধতি আছে। একেক মানুষ একেক পদ্ধতি ব্যবহার করে ।

কেউ নিজ হাতে সাপ ধরে কেউ আবার ফা’দে পেতে সাপ ধরে। এমনি একটি ফা’দে পেতে সাপ ধরার ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায়। বাশ দিয়ে বাননো হলো সাপ ধরার ফা’দ, যেখানে সাপ একবার ডুকল আর বের হতে পারে না্।

সম্প্রতি সোস্যাল মিডিয়ায় এমন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওটি সোস্যাল মিডিয়ায় আসার সাথে সাথে ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। ভাইরাল ভিডিওটি টি আপনারা নিচে গেলেই দেখতে পাবেন।