প্রভার নতুন ১৫ সেকেন্ডের গো’পন ক্যামেরার ভিডিও ভাইরাল

মডেল হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন সাদিয়া জাহান প্রভা। মেরিলের সোপের একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে রাতারাতি তারকা খ্যাতি পেয়ে যান তিনি। সেটি ২০০৫ সালের কথা।

বিজ্ঞাপনের পর নাটকেও সফল হন তিনি। অসংখ্য দর্শকপ্রিয় নাটক উপহার দিয়েছেন প্রভা। মাঝে বেশ কয়েকবার তার সিনেমায় অভিনয় কথা শোনা যায়। তবে শেষ পর্যন্ত তা আর হয়ে ওঠেনি। বড় পর্দায় এখনো ধরা দেননি এই অভিনেত্রী।

অভিনয়ের পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও বেশ সরব এই অভিনেত্রী। নিয়মিত সেখানে ছবি পোস্ট করে থাকেন প্রভা। ছবি বা ভিডিও পোস্ট করার স’ঙ্গে স’ঙ্গে তার ভক্তরা হুহু করে লাইকের বন্যায় ভাসিয়ে দেন। আর সেগুলো ভাইরাল হতেও বেশি সময় লাগে না।

তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) নিজের ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন এই অভিনেত্রী। যেখানে দেখা গেছে, ছাদের মধ্যে শাড়ি পড়ে বৃষ্টিতে ভিজছেন প্রভা। আর এমন ভিডিও পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গেই তা ছড়িয়ে পড়ে অর্ন্তজালে।

প্রভার এমন ভিডিওতে লাইকের বন্যা বয়ে যায়। পাশাপাশি তার ভক্তরা সেখানে কমেন্ট করতেও ভুলেননি। অনেকেই আবার কমেন্ট করেছেন, বছরের শেষটা এমন হবে আগে ভাবিনি।

আরও পড়ুন : সামান্য স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ জীবনের আশায় এবং চরম আর্থিক সংকট কাটিয়ে খেয়ে-পরে বেঁচে থাকার প্রত্যাশায় অনেকেই বাধ্য হয়ে দেহ ব্যবসায় নাম লিখান।

তবে, এমনও যৌ,নকর্মী আছেন যারা এই কাজ করে বিপুল পরিমাণ টাকা উপার্জন করেন। এমনই একজন যৌ’নকর্মী নাম অ্যানা। ২১ বছর বয়সী এই না’রীর দাবি, তিনি দেহ ব্যবসা করে প্রতি রাতে আট লাখ টাকা আয় করেন।

অ্যানার ক্লায়েন্টদের মধ্যে রয়েছেন অস্কার-জয়ী অভিনেতা, রাজনীতিবিদ, খেলোয়াড় কিংবা বড় বড় ব্যবসায়ীরা। নেটফ্লিক্সের একটি জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজের অভিনেতা তার নিত্যদিনের কাস্টমার বলেও জানিয়েছেন অ্যানা।

এমনকি ইউরোপিয়ান ফুটবলারদের মধ্যে অনেকের সঙ্গেই প্রায় রাত কাটান তিনি। তবে তার ক্লায়েন্টদের তালিকায় অর্ধেকই ব্যবসায়ী।অ্যান আরও জানান, বর্তমানে তিনি একজন হলিউড অভিনেতার সঙ্গে ডেটিং করছেন,

যে তার পেমেন্ট ছাড়াও ঘরের ভাড়া এবং শপিং-এর বিলও মেটান। সাত মাস ধরে তার সঙ্গে মিশছেন তিনি। তবে তিনি নাকি বেশ ভদ্রলোক। এমনটাই দাবি অ্যানার। তাই তার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মিশে বেশ খুশি অ্যানা।বেশির ভাগ সময়ই তিনি অনেক দামি দামি উপহার পেয়ে থাকেন। কেউ হয়ত তাকে ৩০ হাজার ইউরো দামের ব্যাগ দিলেন। অ্যানা আরও জানিয়েছেন,

যে ওয়েবসাইটে কুমারিত্ব বিক্রি করা যায়, সেখানে বিক্রি করতে চান তিনি। কারণ ভবিষ্যতে যে তাকে ছেড়ে চলে যাবে তার কাছে নিজের কুমারিত্ব বিকিয়ে দিতে চান না তিনি।