মাহি যেকোনো প্রয়োজনে আমাকে পাশে পাবে: অপু

পাঁচ বছরের মাথায় দাম্পত্য জীবনের ইতি টানলেন ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়িকা মাহিয়া মাহি এবং ব্যবসায়ী মাহমুদ পারভেজ অপু। শনিবার রাতে নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি স্ট্যাটাস দিয়ে নিজের অবস্থান জানান নায়িকা। কিন্তু মাহি ডিভোর্সের ব্যাপার স্পষ্ট করলেও প্রথমে এ বপারে কিছুই জানতে না স্বামী পারভেজ অপু।

এ ব্যাপার রোববার বিকালে অপুর সঙ্গে ডেইলি বাংলাদেশ এর কথা হলে তিনি বলেন- জানতাম না আসলে সেটা নয়, বরং দু’জনেই বোঝাপড়া করেই সবাইকে জানাতে চেয়েছিলাম। যাতে যেটা সত্য সেটাই সবাই জানে। পাশাপাশি নেতিবাচক তথ্য প্রচার না করার আহ্বান জানান অপু।

ডিভোর্সের ব্যাপারে অপু আরো বলেন, আমি আর মাহি দু’জনের সম্মতিতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা এখনো একসঙ্গেই থাকছি তবে খুব শিগরিই আইনি প্রক্রিয়ায় আমারা আগাবো। তবে ডিভোর্স হয়ে গেলেও তাদের মধ্যে ভালো বন্ধুত্ব থাকবে বলে জানান অপু।

নায়িকার প্রসঙ্গে অপু বলেন, মাহি আমার পরিবারের জন্য অনেক করেছে। আমি কোনভাবেই এটা অস্বীকার করতে পারবো না। মাহির যেকোনো প্রয়োজনে আমাকে পাশে পাবে আর আমি যেকোনো প্রয়োজনে মাহিকে পাশে পাবো বলে আশাবাদী।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৪ মে মাহিয়া মাহির বিয়ে হয় সিলেটের ব্যবসায়ী মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে। দুই পরিবারের সম্মতি থাকলেও হুট করে বিয়ে হয়। যদিও বেশ কয়েকবার ভাঙনের গুঞ্জন উঠেছে। তবে প্রতিবারই স্বামীর সঙ্গে রোমান্টিক ছবি কিংবা স্ট্যাটাসে সেসব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন ‘অগ্নিকন্যা’। এবার আর কোনো গুঞ্জন নয়। নায়িকা এবং অপু দুইজনেই নিশ্চিত করলেন তার সংসার ভাঙ্গনের খবর।